নাসিরাবাদ কলেজের ইতিহাস

নাসিরাবাদ কলেজ বাংলাদেশের অন্যতম বৃহত্তর ঐতিহ্যবাহী বেসরকারি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান। প্রতিষ্ঠাকাল হতে অদ্যাবধি এ প্রতিষ্ঠানটির রয়েছে সুদীর্ঘ কালের অগ্রযাত্রার  ধারাবাহিক গৌরবোজ্জ্বল ইতিহাস। দেশের অন্যতম শ্রেষ্ঠ শিক্ষাবিদ আলহাজ রিয়াজ উদ্দিন আহমাদের (১৯০৬ খ্রিস্টাব্দ - ১৯৯১ খ্রিস্টাব্দ) নিরলস পরিশ্রম ও সুদক্ষ তত্ত্বাবধানে ১৯৪৮ সালে প্রায় ১০ একর জমির উপর  এ প্রতিষ্ঠানটি  প্রথম ইসলামিক ইন্টারমিডিয়েট কলেজ রূপে আত্মপ্রকাশ করে। তারপর ১৯৫৬ সালে সাধারণ উচ্চমাধ্যমিক কলেজে, ১৯৫৯ সালে ডিগ্রি কলেজে এবং ২০১০ সালে অনার্স পর্যায়ের কলেজে পরিণত হয়। বর্তমানে এ কলেজে উচ্চমাধ্যমিক, ডিগ্রি পাস ও অনার্স কোর্স অত্যন্ত সাফল্যের সঙ্গে পরিচালিত হচ্ছে এবং পাঁচ হাজারেরও অধিক শিক্ষার্থী নিয়মিত পড়াশোনার করার সুযোগ লাভ করছে। ১৯৯৯ সাল হতে এ কলেজে বাংলাদেশ উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয় পরিচালিত এইচএসসি ও বিএ/বিএসএস কোর্সেও পড়াশোনার  সুযোগ পাচ্ছে অনেক শিক্ষার্থী।
ময়মনসিংহের প্রাচীন নামের সাক্ষ্য বহনকারী ঐতিহ্যবাহী প্রতিষ্ঠান নাসিরাবাদ কলেজ দ্যুতি ছড়াচ্ছে তাবৎ বাংলাদেশ জুড়ে।  এ কলেজের সুখ্যাতির মূলে রয়েছে শিক্ষার্থী, অভিভাবক, শিক্ষক ও কর্মচারীবৃন্দের নিরলস প্রচেষ্টা এবং সুদক্ষ গভর্নিং বডির সুদক্ষ সার্বিক তত্ত্বাবধান। এখানকার শিক্ষার পরিবেশ, পাঠদানের মান ও পরীক্ষার ফলাফল সর্বদাই তুলনামূলকভাবে সন্তোষজনক। বর্তমানে এ প্রতিষ্ঠানে কর্মরত আছেন প্রায় একশত শিক্ষক-কর্মচারী। তাদের কর্মদক্ষতা অত্যন্ত  প্রশংসার দাবি রাখে। প্রতিষ্ঠাকাল হতে অদ্যাবধি যে সকল শিক্ষকের অবদানে এ প্রতিষ্ঠানটি  সুখ্যাতির দিগন্ত বিস্তৃত করে আছে, তাঁদের মধ্যে অধ্যাপক যতীন সরকার, অধ্যাপক গোলাম সামদানী কোরায়শী এবং অধ্যাপক মুহম্মদ রিয়াজুল ইসলামের নাম স্বমহিমায় ভাস্বর হয়ে আছে। সম্প্রতি দুজন সাবেক শিক্ষকের জাতীয় পদক প্রাপ্তি এ কলেজের খ্যাতিকে আরো দীপ্যমান করেছে ।
নাসিরাবাদ কলেজে শিক্ষা লাভ করে অগণিত শিক্ষার্থী আজ নানা কর্মক্ষেত্রে সুপ্রতিষ্ঠিত, অনেকে দেশবরেণ্য ব্যক্তি হিসেবে রেখেছেন এবং রেখে চলেছেন অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ অবদান, তারা  প্রতিনিয়ত দেশ-জাতি ও মানবতার কল্যাণে নিজেদের নিবেদিত রেখেছেন এবং রাখছেন । বিরামহীন পথ পরিক্রমায় ঐতিহ্যবাহী নাসিরাবাদ কলেজ ক্রমাগত এগিয়ে চলেছে অনাগত ভবিষ্যতে ......

সভাপতি

img

মোঃ আমিনুল হক শামীম (সি.আই.পি)

অধ্যক্ষ

img

আহমেদ শফিক

ফেসবুক পেজ

ভিজিটর

symptoma.it